অয়মিয়াকন – পৃথিবীর শীতলতম স্থান, যেখানে মানুষ বাস করে

আমরা সকলেই তীব্র শীতকালীন আবহাওয়ায় এক অথবা দুই দিন কাটাই। তবে অয়মিয়াকনের বাসিন্দারা সম্ভবত ভাবেন যে আমরা সবাই দুর্বল। কারণ তাদের শীতকালীন তাপমাত্রা শূন্য ফারেনহাইটের চেয়ে ৫০ ডিগ্রি (-৪৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস) কম অর্থাৎ -৫০ ডিগ্রি ফারেনহাইট। ঠিক আছে, আমরা অভিযোগ করা বন্ধ করি।

অয়মিয়াকনে বসবাস

অয়মিয়াকন সাইবেরিয়ার প্রাণকেন্দ্রের গভীরে অবস্থিত এবং এটি এমন কোনও জায়গা নয় যেখানে আপনি স্বেচ্ছায় ঘুরে দেখতে পারবেন। আমরা এখানকার শীতকালের তাপমাত্রার ইতিমধ্যে উল্লেখ করেছি, তবে সংখ্যাগুলি দেখতে এবং এর প্রভাবগুলি শেখার মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। সুতরাং এখানে কিছু দ্রুত তথ্য দেয়া হলো:

আপনার চোখের পাপড়ি জমে যাবে। আপনার লালা আপনার মুখের ভেতরে জমাট বরফে পরিণত হবে। আপনাকে ২৪ ঘন্টা আপনার গাড়ি চালাতে হবে নয়তো ব্যাটারিটি নষ্ট হয়ে যাবে। মাটিতে খনন করা একেবারেই অসম্ভব। যদি আপনাকে কখনও মাটিতে কোনও গর্ত খনন করতে হয়, তাহলে প্রথমে কয়েক ইঞ্চি মাটি নরম করতে একটি বিশাল দৈত্যাকার কুটোর আগুন জ্বালিয়ে দিতে হবে কয়েক ইঞ্চি মাটি নরম করার জন্য, এরপর সেই জায়গাটি খনন করতে হবে এরপর আবার আগুন জ্বালাতে হবে এবং মাটি নরম করতে হবে….এরপর আবার। একটি ছোট গর্তের জন্য আপনাকে বারংবার একই কাজ করতে হবে যা কোন দুর্বল হৃদয়ের লোকদের জন্য নয়।

খাবারদাবার

মানুষ এখানে সারা বছরই বাস করে। শহরটির জনসংখ্যা প্রায় ৫০০ জন এবং তারা সুন্দর এবং অস্বাভাবিক উপায়ে তাদের আশপাশের সাথে খাপ খাইয়ে নিয়েছে। একটি জিনিসে তাদের বাধা আছে। অয়মিয়াকনে টাটকা শাকসবজি জাতীয় কোনও জিনিস নেই কারণ এখানে কোনও কিছুই বাড়তে পারে না। প্রায় প্রতিটি খাবারে কেবল মাংস থাকে এবং অনেক সময় এই মাংস রান্না ছাড়া এবং হিমায়িত থাকে। ঘোড়া বা বল্গাহরিণের রক্তের হিমায়িত কিউবকে এখানে সুস্বাদু হিসাবে বিবেচনা করা হয়, যেমন স্ট্রোগেনিনা, এক ধরণের হিমায়িত মাছ যা দীর্ঘ এবং পাতলা টুকরো টুকরো করে কাটা হয়। তবে এটি কেবল একটি বিশেষ ট্রিটের বা স্পেশাল দিনের জন্য। প্রতিদিনের ডিনারগুলিতে ভাপে সিদ্ধ করা মাংস থাকে। এখানে মাংসের উপর জোর দেওয়া হয়।

স্ট্যালিনের ডেথ রিং

শহরটি শীতকালে প্রতিদিন প্রায় তিন ঘন্টা এবং গ্রীষ্মে ২১ ঘন্টা সূর্যের আলো পায়। সত্যি কথা বলতে, আমরা নিশ্চিত নই যে কোন আবহাওয়াটি সবচেয়ে খারাপ। এর বাসিন্দারা ঠিকঠাক আছে, তবে এটি বেঁচে থাকার জন্য খুব খারাপ জায়গা বলে মনে হচ্ছে। যদিও ওমিয়াকন প্রাথমিকভাবে বল্গাহরিণ পালদের ভ্রমণের পথ ছিল, বিশ শতকের মাঝামাঝি সময়ে এই অঞ্চলটি কুখ্যাত হয়ে ওঠে যখন এটি “স্ট্যালিনের ডেথ রিং” নামে পরিচিতি লাভ করে।

আপনি যদি সর্বগ্রাসী স্বৈরশাসক হতে চান তবে এরকম অঞ্চল আপনার কাজে আসবে। বিশেষকরে এমন একটি বিশাল অঞ্চল যা কাউকে এক মিনিটের মধ্যেই মেরে ফেলতে পারে। স্ট্যালিনের শাসনামলে, রাজনৈতিক বিদ্রোহীরা ডেথ রিংয়ে নির্বাসিত হয়েছিল, যার মধ্যে সবচেয়ে শীতলতম স্থান ভারখোয়ানস্কও রয়েছে। এটা অবশ্যই ভয়ানক ছিল। সর্বোপরি, তখন তাদের ইনস্টাগ্রামও ছিল না।

পোস্টটি ভালোলাগলে শেয়ার করার দায়িত্ব নিতে পারেন। মন্তব্য থাকলে কমেন্টে বিশ্লেষণ করতে পারেন।

ধন্যবাদ!

তথ্যসূত্রঃ
What It’s Like Living in the Coldest Town on Earth
In the coldest village on Earth, eyelashes freeze, dinner is frozen and temperatures sink to -88F
Life in extreme cold around the world
This Tiny Town In Russia Is The Most Miserable Place In The World

ছবিঃ iStock