পদ্মা সেতুর সর্বশেষ তথ্য

৬ হাজার ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যের পদ্মা সেতুটি পুরোপুরি দৃশ্যমান হলো শেষ স্প্যানটি বসানোর পর। গত বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) শেষ স্প্যানটি বসানো হয়।

পদ্মা সেতুর সর্বশেষ স্প্যান

“আমাদের সর্বশেষ স্প্যানটি ১০ই ডিসেম্বর স্থাপন করার মধ্য দিয়ে সেতুর মূল কাজটি শেষ হয়ে গেল, অর্থাৎ কাঠামো তৈরি হয়ে গেল।” – বলেন, পদ্মা সেতু প্রকল্পের পরিচালক মোঃ. শফিকুল ইসলাম। এর মাধ্যমে সেতুটির মূল কাঠামো পুরোপুরি দৃশ্যমান হলো। এবার শুরু হবে সড়ক ও রেলের স্ল্যাব বসানোর কাজ।

পদ্মা সেতুর খুঁটির (পিলার) সংখ্যা ৪২টি। পদ্মা সেতুর প্রথম স্প্যানটি খুঁটির ওপর বসানো হয়েছিলো ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর। এটি হচ্ছে পদ্মা সেতুর ৪১তম স্প্যান। অর্থাৎ এর আগে এরকম আরও ৪০টি স্প্যান বসানো হয়েছে।

পদ্মা সেতুর অর্থায়ন

২০০৭ সালে একনেকে পাস হওয়া পদ্মা সেতু প্রকল্পের ব্যয় ছিল ১০ হাজার ১৬২ কোটি টাকা। একাধিকবার প্রকল্পের ব্যয় সংশোধন করার পর সবশেষে প্রকল্প প্রস্তাব সংশোধন না করে ২০১৮ সালের জুনে আবারও ব্যয় বেড়ে দাঁড়ায় ৩০ হাজার ১৯৩ কোটি টাকা। প্রকল্প শেষ হওয়ার আগে আরেক দফা প্রস্তাব সংশোধন করতে হবে।

ALSO READ:  এশিয়ার সেরাদের তালিকায় বাংলাদেশের পরীমনি

পদ্মা সেতুর টোল

সাধারণত বিদেশি অর্থায়নে সেতু নির্মিত হলে টোলের পরিমাণ নির্ধারণে দাতাদের পরামর্শ বা শর্ত থাকে। কিন্তু দেশীয় অর্থায়নে নির্মিত সেতুর টোল কত হবে, সেরকম কোন নিয়মনীতি নেই।

একটি সাধারণ নিয়ম রয়েছে যে, ফেরি পারাপারের সময় যানবাহনগুলোকে যে পরিমাণ টোল দিতে হয়, সেতু পারাপারের ক্ষেত্রেও সেটাই টোল নির্ধারণ করা হয়। তবে সরকারের সেতু বিভাগ পদ্মা সেতুর জন্য যে টোল হারের প্রস্তাব করেছে, সেটি ফেরি টোলের চেয়ে দেড়গুণ বেশি।

সেতু চালু হওয়ার পর পরবর্তী ১৫ বছরের জন্য প্রস্তাবিত টোলের পরিমাণ মোটরসাইকেলের জন্য ১০৫ টাকা, কার জিপের জন্য ৭৫০ টাকা, ছোট বাসের জন্য ২০২৫ টাকা, বড় বাসের জন্য ২৩৭০ টাকা, পাঁচ টনের ট্রাকের জন্য ১৬২০ টাকা, আট টনের বড় ট্রাকের জন্য ২৭৭৫ টাকা, মাইক্রোবাসের জন্য ১২৯০ টাকা করা হয়েছে। তবে এখনো এই প্রস্তাবের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি সরকার।

পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য

পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য (পানির অংশের) ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার। তবে ডাঙার অংশ ধরলে সেতুটির মোট দৈর্ঘ্য প্রায় নয় কিলোমিটার।

সেতুর ওপরে গাড়ি চলাচল করবে, রেল চলবে নিচের অংশে।

ALSO READ:  এশিয়ার সেরাদের তালিকায় বাংলাদেশের পরীমনি

পদ্মা সেতুর বর্তমান অবস্থা

রোডওয়ে স্ল্যাব= ৪০ শতাংশের বেশি হয়ে গেছে (রোডওয়ে স্ল্যাবের ২৯১৭টির মধ্যে ১২৮৫টি স্থাপন করা হয়েছে)
রেলওয়ে স্ল্যাব= ৬০ শতাংশের বেশি হয়ে গেছে
ব্রিজের রেলিং, স্ট্রিট ও আর্কিটেকচারাল লাইটিং, গ্যাস ও বিদ্যুৎ লাইন স্থাপন করা বাকি আছে।

আগামী একমাসের মধ্যেই সেতুর কাজ সম্পন্ন করার একটি সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণা করা হতে পারে বলে জানান পদ্মা সেতু প্রকল্পের পরিচালক।

ধন্যবাদ!

তথ্যসূত্রঃ
Wikipedia
BBC
Prothom Alo

ছবিঃ Wikimedia